Home / আন্তর্জাতিক / ছেলের বিয়ের আসরেই পুত্রবধূর ঠোঁটে চুম্বন শ্বশুরের!

ছেলের বিয়ের আসরেই পুত্রবধূর ঠোঁটে চুম্বন শ্বশুরের!

অতিথিদের সমাগমে তুমুল হইচই বিয়েবাড়ি জুড়ে। চারিদিকে তখন নব দম্পতির সাংসারিক সুখের মঙ্গলকামনায় রত সবাই। সদ্য বিয়ের পর্ব শেষ হয়েছে। চলছে ফোটোসেশন। নববধূর হাত ধরে দাঁড়িয়ে আছেন বর। আচমকাই এগিয়ে এলেন বরের বাবা। পুত্রবধূকে হাত ধরে টেনে সামনে নিয়ে এলেন তিনি এবং এরপর পুত্রবধূর কাঁধে হাত রেখে সোজা সামনে টেনে নিয়ে ঠোঁটে গভীর চুম্বন করলেন শ্বশুরমহাশয়। শ্বশুরের এমন আচরণে প্রায় অনেকেই বিষ্মিত হয়ে যান।

আমাদের দেশে এমনভাবে পুত্রবধূকে চুম্বন করাটা শুধু অশ্লীল নয়, বিকৃত মানসিকতার লক্ষ্মণ বলেই গণ্য করা হয়। কারণ, আমাদের সংস্কৃতিতে পুত্রবধূ কন্যাসমা। তবে, একটা ভাল কথা এই ঘটনা আমাদের দেশের নয়, চিনের। মধ্য চিনের হান্নান প্রদেশের একটি গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করা হচ্ছে। পুত্রবধূর ঠোঁটে শ্বশুরের এই চুম্বনকে কেউ মোবাইল ভিডিওতে বন্দি করেছিলেন, পরে এই ভিডিও-ই ছড়িয়ে পড়ে ইন্টারনেটে।

ভরা বিয়ের আসরে ছেলের বউকে কেন এমনভাবে চুম্বন করার সাহস দেখালেন শ্বশুর। দাবি করা হয়েছে বিয়ের পর্ব মিটতেই শ্বশুরের এক বন্ধু বাজি রাখেন নব পুত্রবধূর ঠোঁটে ঠোঁট রেখে চুম্বন করতে হবে। শ্বশুরমশায় যদি এমনটা করতে পারেন তাহলে চিনা মুদ্রায় ১০ হাজার ইয়েন যা ভারতীয় মুদ্রায় ১ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে।

বন্ধুর সঙ্গে বাজি রেখেই নাকি এরপর পুত্রবধূকে ১৭ সেকেন্ড ধরে চুম্বন করেন শ্বশুর। এমন বাজি নিয়ে প্রথমে পুত্রবধূ একটু ইতস্তত করছিলেন। কিন্তু, বিয়ের আসরে থাকা লোকজনই নাকি পুত্রবধূকে ধাক্কা মেরে শ্বশুরের দিকে ঠেলে দেন। আর শ্বশুর সেসময় পুত্রবধূর কাঁধ খামচে ধরে তাঁর ঠোঁটে ঠোঁট রাখেন। বাজিতে জেতা ১ লক্ষ টাকা অবশ্য শ্বশুর পুত্রবধূকেই দিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু, শালীনতা ছাড়ানো শ্বশুরের এই কীর্তি বিশ্বজুড়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় ধিক্কৃত হচ্ছে।

About Abul Fazal Azad

Check Also

02

‘মোদি সরকারের জন্য বড় ধাক্কা’, ভারতীয় সেনাবাহিনীতে বিদ্রোহের আশঙ্কা!

লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিপিন রাওয়াতকে সেনাপ্রধান হিসেবে নির্বাচিত করছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। এতেই বিতর্কের শুরু। কারণ …

981

এবার জাতিসংঘ ছাড়ার হুমকি দিল ইসরাইল

জাতিসংঘের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে ইসরাইল। দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু শনিবার এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *