Home / বাংলাদেশ / ঈদের ভ্রমণে ঘুরে আসুন খাগড়াছড়ি

ঈদের ভ্রমণে ঘুরে আসুন খাগড়াছড়ি

ঈদের ছুটিতে একটু রিল্যাক্স না করলে কি চলে? কুরবানীর ঈদে থাকে অনেক কাজ। কিন্তু সব কাজের পর মন চায় একটু বেড়িয়ে আসতে, পরিবার নিয়ে অথবা বন্ধুরা মিলে দূরে কোথাও সবুজ সুনিবিড় শান্তির মাঝে। এজন্য অবশ্যই যেতে হবে ঢাকার বাইরে। ঘুরে আসতে পারেন সবুজ পাহাড়ের দেশ খাগড়াছড়ি। অবশ্যই দেখবেন-
আলুটিলা-
খাগড়াছড়ি মা্নেই যেন গাঁ ছমে ছমে আলুটিলা। আলুটিলার প্রাকৃতিক গুহায় মশাল হাতে একবার অন্তত না গেলে যেন খাগড়াছড়ি ভ্রমণই বৃথা। আলুটিলার চূড়া থেকে পুরো শহরের দৃশ্য দেখা একটি চমৎকার অভিজ্ঞতা। পাহাড়ের চূড়া থেকে সিঁড়ি বেয়ে আপনাকে নেমে যেতে হবে গুহায়। ভেতরে একদম অন্ধকার। তাই গেটের কাছ থেকেই সংগ্রহ করুন আপনার মশালটি। রহস্যময় গুহাটি পার হতে সময় লাগে ২০ মিনিটের মত। পানিতে ডুবে থাকা পাথরে সাবধানে পা ফেলবেন অবশ্যই।
রিসাং ঝর্ণা-
মাটিরাঙ্গা উপজেলায় অবস্থিত অপূর্ব ছোট একটি ঝর্ণা রিসাং। ঝর্ণাটি নেমেছে পাথুরে পাহাড়ের কোলে। এটাই যেন তার সুরক্ষা ব্যাবস্থা। ঝর্ণার পানির কারণে পাথর থাকে সবসময় পিচ্ছিল। পাথরের গাঁ ঢালু বলে পিছলে যে কোন সময় পড়ে যেতে পারেন সোজা ঝর্ণার পানিতে তৈরি হওয়া পুকুরে। তাই সাবধানে পা ফেলবেন। গাছে শেকড় ধরে ঝর্ণার নিচে যাওয়ার আর কোন উপায় নেই অবশ্য।
দেবতার পুকুর-
জেলা সদর থেকে মাত্র ০৫ কি:মি: দক্ষিণে খাগড়াছড়ি – মহালছড়ি সড়কের কোল ঘেষে অবস্থিত মাইসছড়ি এলাকার নুনছড়ি মৌজার আলুটিলা পর্বত শ্রেণী হতে সৃষ্ট ছোট্ট নদী নুনছড়ি। মূল রাস্তায় বাস থেকে নেমে কিলো দুয়েক পায়ে হাঁটা পথ। নিজস্ব পরিবহন থাকলে তা নিয়ে আপনি সোজা চলে যেতে পারেন একেবারে পাদদেশে নদীর কাছে।
হাজাছড়া ঝর্ণা-
দিঘিনালায় অবস্থিত আরেকটি চমৎকার ঝর্ণা এটি। বেশ উঁচু খাড়া একটি ঝর্ণা। এর নিচে পানিতে শান্তিমত গোসল করতে পারবেন। কোন রিস্ক নেই। যাতায়াতও সহজ। যে গাড়িটি ভাড়া নেমে তা প্রায় কাছেই পৌঁছে দেবে আপনাকে। এরপর ২০ মিনিটের মত হাটতে হবে। পথে যাকেই পাবেন সামনের পথ কোনদিকে নিশ্চিত হয়ে নেবেন। একা আপনি হারিয়ে যাবেন না, তবে সময় নষ্ট হবে।
আরও দেখবেন-
১। তৈদুছড়া
২। মহালছড়ি হ্রদ
৩। শতায়ুবর্ষী বটগাছ
৪। পাহাড়ী কৃষি গবেষণা কেন্দ্র
৫। ভগবান টিলা
৬। দুই টিলা ও তিন টিলা
৭। মানিকছড়ি মং রাজবাড়ি
৮। বন ভান্তের প্রথম সাধনাস্থল
৯। রামগড় লেক ও চা বাগান
কোথায় থাকবেন-
পর্যটন মোটেল: এটি শহরে ঢুকতেই চেঙ্গী নদী পার হলেই পরবে । মোটেলের সব কক্ষই ২ বিছানার। যোগাযোগঃ ০৩৭১-৬২০৮৪৮৫ ।
গিরি থেবার : এটি খাগড়াছড়ি শহরের কাছে খাগড়াছড়ি ক্যন্টনমেন্টের ভিতরে অবস্থিত। এখানে সিভিল ব্যক্তিরাও থাকতে পারে। সব রুমই শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত। যোগাযোগ : কর্পোরেল রায়হান- ০১৮৫৯০২৫৬৯৪।
হোটেল ইকো ছড়ি ইন: খাগড়াপুর ক্যান্টর্মেন্ট এর পাশে পাহাড়ী পরিবেশে অবস্থিত । এটি রিসোর্ট টাইপের হোটেল । যোগাযোগঃ ০৩৭১-৬২৬২৫ , ৩৭৪৩২২৫ ।
হোটেল শৈল সুবর্ন: ০৩৭১-৬১৪৩৬ , ০১১৯০৭৭৬৮১২ ।
হোটেল জেরিন: ০৩৭১-৬১০৭১ ।
হোটেল লবিয়ত: ০৩৭১-৬১২২০ , ০১৫৫৬৫৭৫৭৪৬ , ০১১৯৯২৪৪৭৩০ ।
হোটেল শিল্পী: ০৩৭১-৬১৭৯৫ ।
 
যেভাবে যাবেন:
রাজধানী ঢাকা থেকে খাগড়াছড়ির উদ্দেশ্যে বিভিন্ন আরামদায়ক বাস ছাড়ে প্রতিদিন কমপক্ষে ১০-১৫টি। সাইদাবাদ, কমলাপুর, গাবতলী, ফকিরাপুল, কলাবাগান ও টিটি পাড়া থেকে টিকেট সংগ্রহ করে এস আলম, স্টার লাইন, শ্যামলী, সৌদিয়া, শানিত্ম স্পেশাল ও খাগড়াছড়ি এক্সপ্রেসযোগে খাগড়াছড়ি যাওয়া যায়। ঢাকা থেকে ট্রেনে ফেনী এসেও হিলকিং অথবা হিল বার্ড বাসে চড়ে খাগড়াছড়ি যাওয়া যায়। চট্টগ্রামের অক্সিজেন থেকেও শানিত্ম স্পেশাল ও লোকাল বাসে উঠে যাওয়া যায় খাগড়াছড়িতে।
 
টিপস-
* একই দিকে পড়েছে এমন জায়গাগুলো একবারে দেখুন। সেভাবেই আপনার সিএনজি বা গাড়ি ঠিক করুন।
* মশার উপদ্রপ আছে। তাই ওডোমস ব্যবহার করুন
* কোথাও কোন প্লাস্টিক বা আবর্জনা ফেলবেন না। আপনার পরিবেশ রক্ষার দায়িত্ব আপনার।
* গাইড নেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই।
লিখেছেন
আফসানা সুমী
ফিচার রাইটার, প্রিয় লাইফ
প্রিয়.কম

About Editor

Check Also

358

উত্তরায় ভয়ংকর কিশোর বখাটেরা

রাজধানীর উত্তরায় উঠতি কিশোর-তরুণরা মিলে গড়ে তুলেছে ভয়ংকর বখাটে দল। এলাকায় মোটরসাইকেল প্রতিযোগিতা, গান-বাজনা, খেলার …

352

ঢাকার ভয়ঙ্কর ফাঁদগুলো জেনে নিন

কর্মসংস্থানের সন্ধানে ঢাকায় আসছে মানুষ। তাই দিন যত যাচ্ছে মানুষের সংখ্যাও তেমন বাড়ছে। আর এসব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *